Monday, October 10, 2016

মহান ইমামদের পবিত্র নামে ইহুদী সৃষ্ট ও ইসলামের শত্রু শিয়াবাদের হীন জালিয়াতি ঘৃন্য মিথ্যাচার ও অপপ্রচার সম্পর্কে সজাগ থাকুন


এ মহান শাহাদাতের শিক্ষা চেতনা ভূলে কলেমার উচ্চারণ কলেমার আলোকধারায় যুক্ত করবে না, বিশেষতঃ মুসলিম ছদ্মবেশী বস্তুবাদ থেকে কখনও আত্মা ও জীবনের মুক্তি আসবে না। শুধু মুসলিম মিল্লাত নয় সমগ্র মানবতার মুক্তি ও বিকাশ এবং জীবনের স্বাধীনতা অধিকার এ মহান শাহাদাতের শিক্ষা ও নির্দেশনা উপলব্ধির উপর নির্ভরশীল।

মিল্লাতকে জাতীয় শহীদ দিবস হিসেবে এর লক্ষ্য উদ্দেশ্য নিয়েই এ মহান শাহাদাত দিবস পালন করতে হবে নিজের অস্তিত্ত্বের স্বার্থে। দয়াময় আল্লাহতাআলা ও তাঁর হাবীব সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের প্রেম আপনত্ত্ব সম্পর্ক ও মহামহিম পবিত্র আহলে বায়েত ও মহামান্য খোলাফায়ে রাশেদীনের সম্পর্ক অবিচ্ছিন্ন বিষয়। একই সাথে দ্বীনের প্রকৃত ধারা ও মানবতার মুক্তির ধারা এবং তাঁরা অবিচ্ছেদ্য বিষয়। পবিত্র আহলে বায়েতের ভালবাসার নামে শিয়াবাদী ধোকা আছে যারা তাঁদের দ্বীনের বিপরীত তাঁদের পথের বিপরীত আবার ইসলামের নাম ব্যবহার করছে। প্রকৃত ইসলাম ও পবিত্র আহলে বায়েত এবং মহান খোলাফায়ে রাশেদীন ও মকবুল সাহাবায়ে কেরাম অবিচ্ছিন্ন বিষয়। আকিদার খেলাফ করে দ্বীন বিকৃত করে স্বৈরতন্ত্র চালিয়ে শরিয়ার নামে বাড়াবাড়ি-উগ্রতা-খুন-সন্ত্রাস-দস্যুতা এজিদবাদ কায়েম করে তাঁদের আপন দাবী করা যায় না, যদিও অনেক ভাল মানুষ না বুঝে এসব ভ্রান্ত মতবাদে আবদ্ধ হয়ে আছেন। আমরা তাঁদের মুক্তি কামনা করি।

আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতই ইসলামের প্রকৃতধারা কিন্তু এ নামেও ধোকা ও বিকৃতি আছে, তাই জীবনের সব দিকে ঈমান ও দ্বীনের প্রকৃত ধারা সুস্পষ্টভাবে বুঝতে হবে। ঈমানের পবিত্র কলেমার খেলাফ তথা মহামহিম পবিত্র আহলে বায়েতের খেলাফ, মহামান্য খোলাফায়ে রাশেদীন ও মকবুল সাহাবায়ে কেরামের খেলাফ, সত্যের ইমামবৃন্দ ও আওলিয়া কেরামের পরিপন্থী, কোন কিছু এ নামে চালিয়ে দেয়া যায় না। আত্মা-জীবন-রাষ্ট্র-বিশ্ব সব বিষয়ে আকিদা আদর্শ সব দিকে আত্মিক রাজনৈতিক সব ক্ষেত্রে পবিত্র কলেমার ভিত্তিতে দ্বীনের প্রকৃতধারা আহলে সুন্নাতের সুস্পষ্ট দিশা রয়েছে যার ব্যতিক্রম বা বিপরীত করে ইসলাম বা আহলে সুন্নাতের দাবী করা যায় না।

দ্বীনের প্রকৃত ধারা নাজাতের মকবুল ধারা আহলে সুন্নাত দাবী করলে মহামহিম পবিত্র আহলে বায়েত, মহামন্য খোলাফায়ে রাশেদীন ও মকবুল সাহাবায়ে কেরামের নীতিতে থাকতে হবে। আকিদার খেলাফ করে বা বস্তুবাদের অংশ হয়ে কিম্বা দ্বীনের পূর্ণাংগতা বাদ দিয়ে তা হয় না। অরাজনৈতিক দাবী করে কিম্বা দ্বীনের নামে বর্বর খারেজি সালাফি   রাজনীতি বা বস্তুবাদের রাজনীতি করেও তা হয়না। মা-বোনদের বাদ দিয়ে কেবল পুরুষ বা লিংগবাদী হলেও আহলে সুন্নাত হয়না। ঈমানের উর্ধ্বে আমল নিয়ে আহলে সুন্নাত হয়না। আহলে সুন্নাতের ধারা পবিত্র কলেমার রেসালাতেইলাহী ভিত্তিক সত্ত্বা ও ঈমানী হৃদয়ের ধারা যা প্রেম- জ্ঞান-কল্যাণ-মুক্তির মুক্ত স্বাধীন ধারায় প্রবাহিত হয়। বাতেল জালেম বস্তুবাদী অপশক্তির অংশ হয়ে আহলে সুন্নাত দাবী করা যায় না। সব বাতেল থেকে মুক্ত হয়ে আল্লাহতাআলার উদ্দেশ্যে একমাত্র প্রিয়নবীর হয়ে যাওয়াই আহলে সুন্নাত তথা ঈমানী ধারার মৌলিক ভিত্তি।

বিভিন্ন বাতেলের বহুমূখি চক্রান্তের কারণে এবং হকের অনুসারীদের সময়োপযোগ্য দুনিয়াব্যাপী ঐক্যবদ্ধ পূর্ণাংগ প্রয়াসের অভাবে হকের পরিচয় অনেক ক্ষেত্রে অস্পষ্ট হয়ে গেছে যার সুযোগে অনেক স্বার্থবাদী হক-বাতেল একাকার করে মিল্লাতকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিয়েছে, যার সুযোগে অনেক বাতেল জালেম চক্র ইসলাম বা আহলে সুন্নাতের নামে ধোকা দিতে সক্ষম হয়েছে। ঈমানের পবিত্র কলেমার জীবনচেতনার বিপরীতে বস্তুবাদী জীবনচেতনা আত্মাকে গ্রাস ও নিয়ন্ত্রন করছে। বস্তুবাদী আঁধার বিকৃত অসুস্থ ধারায় মনমানসিকতা তৈরি হয়েছে, বস্তুবাদের জয়কে নিজের জয় মনে করছে এবং বস্তুবাদের ভাষায় চিন্তা, কথা ও কাজ চলছে। বাতেল ফেরকা ও বস্তুবাদের ধ্বংসাত্মক গোষ্ঠিবাদী রাজনীতির আঁধার বিণাশী ধারায় নিমজ্জিত করে তাদের টিকে থাকার খুঁটি হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে প্রায় সব মানুষ, অনুষ্ঠান, প্রতিষ্ঠান প্রায় সব কিছু।

এমতাবস্থায় দয়াময় প্রিয়নবীর শুভাগমনের সব দান দিশা লক্ষ্য এবং সে ভিত্তিতে শাহাদাতে কারবালার দিশা-লক্ষ্য-উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে বিশ্ব সুন্নী আন্দোলন (World sunni movement)  এর মাধ্যমে দ্বীনের মূল আকিদা, প্রকৃত আদর্শ ও পূর্ণাংগতার নির্ভেজাল ধারা ফিরে এসেছে। আত্মা-জীবন-রাষ্ট্র-বিশ্ব তথা জীবনের সব দিকে ঈমানের পবিত্র কলেমার ভিত্তিতে দ্বীনের রূপরেখা এবং মানবতার মুক্তির দিকদর্শন ফিরে এসেছে, যার ভিত্তিতে আজ এগিয়ে যাওয়াই সকল প্রকার বাতেল জালেম অপশক্তির কবল থেকে জীবন ও দুনিয়ার মুক্তি এবং সত্য ও মানবতার বিজয়। সমগ্র মিল্লাত ও সমগ্র মানবমন্ডলীকে নিয়ে পূর্ণাংগ ভাবে বিশ্বব্যাপী কর্মসূচী নিয়ে সত্য ও মানবতার মুক্তির দিকদর্শন বিগত দীর্ঘ সময় ধরে না থাকাতে বরং অপূর্ণাংগ ও ভূল পথে বিচ্ছিন্ন পথে চলায় ঈমান দ্বীনের আসল ধারা সত্য-ন্যায়-জ্ঞান-অধিকার-স্বাধীনতা- নিরাপত্তা-মানবতার আসল ধারা পরাজিত উৎখাত হয়ে জীবন ও দুনিয়া বিপরীত বিণাশী অপশক্তির কবলে চলে গেছে।

- ইমাম হায়াত



শেয়ার করুন