Tuesday, October 25, 2016

দাগনভূইয়ায় ওয়ারেন্টভুক্ত আসামির হামলায় পুলিশ আহত



দাগনভূইয়া প্রতিনিধিঃ
দাগনভূইয়া নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত  আসামি আইয়ুব আলী ও তার সহযোগির হামলায় দাগনভূইয়া থানার পুলিশ এএসআই ইমাম হোসেন গুরুতর আহত হয়েছেন। উক্ত ঘটনাটি ঘটেছে  শনিবার দাগনভূইয়া উপজেলার ১নং সিন্দুরপুর ইউনিয়নের দরবেশের হাটে বাজারের হীরা কনফেকশনারী দোকানের সামনে। ওই ঘটনায় দাগনভূইয়া থানার পুলিশ বাদী হয়ে ৭ জন এজহার নামীয় ও অজ্ঞাতনামা ২০-৩০জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ ও স্থানীয়  সূত্রে জানা যায়,  উপজেলার দক্ষিণ কৌশল্যা গ্রামে মৃত সিরাজ আমিনের ছেলে আইয়ুব আলীর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার গ্রেপ্তারী পরোয়ানা রয়েছে। মামলা নং- ২৪৪/১৫। সেই দিন পুলিশ গোপন সূত্রে ভিত্তিতে খবর পেয়ে এএসআই ইমাম হোসেনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ দরবেশের হাটে আসামি আইয়ুব আলীকে গ্রেপ্তার যায়। 

আসামি আইয়ুব অস্ত্র-সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে লাঠি-সোটা নিয়ে পুলিশ কর্মকর্তাকে এলোপাতাড়ি কিল, ঘুষি মেরে ফুলা জখম করে। ওই সময় অন্যান্য পুলিশের সদস্যেরা চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে আহত অবস্থায়  ইমাম হোসেনকে দাগনভূইয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। আর সেই ধিক্কারজনক  ঘটনার জন্য পুলিশ বাদী হয়ে কর্তব্য কাজে বাধা প্রদান এবং মারধর করে জখমের ঘটনায়   মৃত সিরাজ আমিনের ছেলে আইয়ুব আলী, স্বপন, বাকের এবং মীর আহাম্মদের ছেলে সুমন, মোস্তফার ছেলে ইস্ররাফিল, মৃত আবদুল আজিজের ছেলে আলমগীর, নুর ইসলামের ছেলে ওমর ফারুক প্রকাশ ফকির, নোয়াখালী জেলার কবিরহাট উপজেলার জগনানন্দ গ্রামের মৃত বদু মাঝির ছেলে আবু ছায়েদ সহ অজ্ঞাতনামা ২০-২৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। দাগনভূইয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আসলাম উদ্দিন মামলার সত্যতা নিশ্চিত করেন। এবং তিনি বলেন, পুলিশ কর্মকর্তার উপর হামলাকারী আসামিদের  গ্রেপ্তার করতে জোর প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

শেয়ার করুন