Wednesday, October 12, 2016

মহান জাতীয় শহীদ দিবস কর্মসূচী পালন করতে হবে হারানো মানবতার পূণঃরূজ্জীবন ও বিধ্বস্ত বিকৃত দ্বীন-মিল্লাতের পূণঃপ্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে


মহান জাতীয় শহীদ দিবস কর্মসূচী পালন করতে হবে হারানো মানবতার পূণঃরূজ্জীবন ও বিধ্বস্ত বিকৃত দ্বীন-মিল্লাতের পূণঃপ্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে। মহান জাতীয় শহীদ দিবস পালনের মৌলিক বিষয় সত্যের ভিত্তিতে জীবনের উপলব্ধি এবং মানবতার মুক্তির লক্ষ্যে একক ধর্ম-জাতি-ভাষা-গোত্রের একক কর্তৃত্ত্ববাদী স্বৈরগোষ্ঠিবাদী রাষ্ট্রব্যবস্থা ও মানবতা বিধ্বংসী বিশ্বব্যবস্থার পরিবর্তন করে ধর্মীয় মূল্যবোধ ভিত্তিক অসম্প্রদায়িক সার্বজনীন মানবিক রাষ্ট্রব্যবস্থা ও বিশ্বব্যবস্থা। অতএব মানবতার রাষ্ট্র ও বিশ্ব গড়ে তোলার সাধনায় বিপ্লবী অভিযাত্রাই মহান জাতীয় শহীদ দিবস পালনের প্রধান লক্ষ্য ও কর্মসূচী।

লক্ষ্যভিষারী এ মহান শাহাদাতের অরাজনৈতিক পালন এ শাহাদাতের লক্ষ্য উদ্দেশ্যের বিলুপ্তি ঘটিয়ে সব কিছু আঁধারে নিক্ষিপ্ত করে বাতেল জালেম অপশক্তি কায়েম রাখা। প্রধান লক্ষ্য গোষ্ঠিবাদী অপরাজনীতির স্বৈরদস্যুতার হাতিয়ার গোষ্ঠিবাদী রাষ্ট্রব্যবস্থা ও মানবতা বিধ্বংসী বিশ্বব্যবস্থার অন্যায় কর্তৃত্ত্ব গ্রাস থেকে সত্য ও মানবতার মুক্তির লক্ষ্য মানবতার রাষ্ট্রব্যবস্থা বিশ্বব্যবস্থা হলেও যার শিকড় আত্মায়, যার ভিত্তি ভূমি জীবন, যার উৎস কলেমার জীবন চেতনা, যার প্রাণশক্তি প্রেম। কারাবালার শাহাদাতের শিক্ষা ও লক্ষ্য বিশাল বৃক্ষের মত, যার উপরিভাগ বা কান্ড রাজনৈতিক আর মূল আত্মিক আধ্যাত্মিক যাহা আরশে আজীমে যুক্ত, ঈমানের পবিত্র কলেমার অনন্তধারায় একাকার।

অতএব রাজনৈতিক কর্মসূচী মূখ্য হলেও কেবল রাজনৈতিক রাষ্ট্রীয় নয়, শিকড় ও উৎসের সংযোগ এবং গন্তব্য ঠিক থাকতে হবে, মূল আত্মিক চেতনা ও আধ্যাত্মিক বিকাশের ধারায় পালন করতে হবে। রাজনৈতিক দিক বাদ দিয়ে কেবল আধ্যাত্মিক দিক হবে না, আর আত্মিক ও আধ্যাত্মিক দিক বাদ দিয়ে কেবল রাজনৈতিক দিকও অসার হয়ে যাবে। মৌলিক দুই দিকের কোন একদিক বাদ দিয়ে কেবল একদিকের পালন মহান শাহাদাতে কারাবলার পালন হবে না, পালন হতে হবে পূর্ণ রূপরেখায় পূণাংগ দিকদর্শনে।

- ইমাম হায়াত


শেয়ার করুন