Friday, October 28, 2016

মহান প্রিয়নবীর শুভাগমনের মধ্যে দিয়ে এ দুনিয়ায় সত্য ও মানবতার প্রাণপ্রদীপ ফিরে পেয়েছে এবং সকল আধাঁর ও অপশক্তির কবল থেকে মানবতার মুক্তি হয়েছে



কলাম:
আল্লাহতায়ালার পক্ষ থেকে জীবনের অপরিহার্য্য আলো হিসেবে দুনিয়ায় প্রিয়নবীর শুভাগমন আমাদের সবার ঈমানী অস্তিত্ত্বের মূলের শুভাগমন, সত্য ও জীবনের সঠিক দিশার শুভাগমন, মিথ্যা-মূর্খতা-জুলুম-স্বৈরদস্যুতা ও সকল অপশক্তির বিণাশ থেকে উদ্ধারের শুভাগমন, মানবতার মুক্তির শুভাগমন। প্রিয়নবীর মহান শুভাগমন ঈদে আজমই এ দুনিয়ায় সত্য ও মানবতার প্রাণপ্রদীপ এবং সকল অপশক্তি থেকে অস্তিত্ত্বের সুরক্ষা। মিথ্যা-মূর্খতা-জুলুম-শোষণ-স্বৈরদস্যুতা ও সকল অপশক্তি থেকে উদ্ধার করে সত্য ও মানবতার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে দোজাহানে মানবতার মুক্তি সাধনাই দুনিয়ায় প্রিয়নবীর শুভাগমন ঈদে আজমের লক্ষ্য। ঈদে আজম উদযাপন করতে হবে ঈমানী দায়িত্ত্ব হিসেবে জীবনের সর্বোচ্চ বিষয় হিসেবে এর সঠিক লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যে। আত্মা –জীবন-সমাজ-রাষ্ট্র ও বিশ্বব্যবস্থা থেকে মিথ্যা জুলুমের কর্তৃত্ত্ব দূর করে জীবনের সর্বস্তরে সত্য, জ্ঞান ও মানবতার শান্তিময় আলোকধারা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে। 

আর এ জন্য ঈদে আজমের লক্ষ্য দুনিয়ায় সত্য ও মানবতার বিপ্লব সাধনে আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ইনসানিয়াত তথা দ্বীনী মূল্যবোধ ভিত্তিক সার্বজনীন মানবিক গণতান্ত্রিক কল্যাণময় নিরাপদ রাষ্ট্র ও বিশ্বব্যবস্থার লক্ষ্যে এগিয়ে যেতে হবে সঠিক লক্ষ্যে ঈদে আজম উদযাপন করা ঈমানের আলো সত্যের আলো প্রজ্জলিত রাখা এবং নিজেকে কলেমার ধারক হিসেবে গতিশীল রাখা। সঠিক পথে সঠিক কর্মধারায় ঈদে আজম পালনের মধ্য দিয়েই জীবম্মৃত মিল্লাত পুনরুজ্জীবীত হতে পারে এবং আবার দাঁড়াতে পারে বিশ্বমানবতার মুক্তির দিশা হয়ে। বিরাজমান মহাবিপর্যয়কর পরাজিত, উৎখাত, সত্যহারা, দিকভ্রান্ত ও সর্ববাতেলের বহুমুখী আগ্রাসনে বিপন্ন অবস্থায় সঠিক লক্ষ্যে সম্মিলিতভাবে ঈদে আজম পালন মিল্লাত ও মানবতার উদ্ধার ও মুক্তির জন্য যেমন অতি অপরিহার্য্য তেমনি সময়ের সবচেয়ে জরুরি এবাদত, দ্বীনের সবচেয়ে জরুরি খেদমত ও হেফাজত। ঈদে আজম উদযাপন ও এর সব কর্মসূচীতে অংশ গ্রহণ করে আমরা আমাদের জীবনের এই সত্য তুলে ধরতে হবে যে, আল্লাহতায়ালার নামে আমরা শুধু আমাদের প্রিয়নবীর।

আমরা বাতেল ফেরকা, বস্তুবাদ ও স্বৈর রাষ্ট্রব্যবস্থা তথা মিথ্যা জুলুমের অপশক্তির সহযোগী বা অংশ নই। আমাদের জীবন ঈদে আজমের লক্ষ্য সত্য ও মানবতার প্রতিষ্ঠায় এবং মিথ্যা ও জুলুমের অপশক্তির কবল থেকে মানবতার মুক্তি সাধনায় নিবেদিত। ঈদে আজমের লক্ষ্য ও শিক্ষার যে আমানত তথা কলেমার যে জীবন ও বিশ্বমানবতার মুক্তির দিশা মহান আহলে বায়েত, খোলাফায়ে রাশেদীন, মকবুল সাহাবায়ে কেরাম, সত্যের ইমামবৃন্দ ও আওলিয়াকেরাম যুগ থেকে যুগান্তরে আমাদের নিকট পৌছিয়েছেন, তাঁদের উত্তরাধিকার হিসেবে আমরা আজ তা অবশ্যই এগিয়ে নিতে অংগীকারাবদ্ধ। আমরা পরস্পর বিচ্ছিন্ন থেকে ঈদে আজমের বিরূদ্ধ বিপক্ষ শক্তি মিথ্যা জুলুমের অপশক্তিকে আমাদের সব কিছু জবরদখল করে কায়েম থাকতে আর সহযোগী না হয়ে আসুন আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রিয়নবীর প্রেমের আলোকে আলোকিত থাকি এবং সমগ্রমানবমন্ডলীকে আলোকিত ও মুক্ত করি। 
             

           "ইমাম হায়াত আলাইহি রাহমা "


শেয়ার করুন