Friday, November 4, 2016

হজ্জ ও জিয়ারতে দরবারে নবী



তাহেরুল ইসলামঃ
হজ্জের মওসুম চলছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের প্রায় ৩০ লাখ মুসলিম হজ্জের নিয়তে মক্কাতুল মুয়াজ্জামায় হাজির হয়। তা সবাই জানে। তাদের মূল উদ্দেশ্য হল আল্লাহর নিকট ক্ষমা চেয়ে নিজেদের গুনাহ মাফ করে নেয়া। সেই সুযোগে সউদি ওয়াহাবী সরকার সরল প্রাণ মুসলমানদের ঈমান নষ্ট করার জন্য নানান ভাবে চেষ্টা করছে। বান্দা কিভাবে আল্লাহর নিকট ক্ষমা চাবে আল্লাহ তায়ালা সেই রাস্তাও দেখিয়ে দিয়েছেন।
এই প্রশঙ্গে আল্লাহ তায়ালা বলেনঃ 
ওয়া লাও আন্নাহুম ইজ ঝালামু আনফুসাহুম ফাগতাগফিরুল্লাহা ওয়াস তাগফিরু লাহুমুর রাসুলু লা ওয়াজাদ্দাল্লাহা তাওয়াবুর রাহিম- হে আমার হাবিব, তারা (আপনার ইমানদার উম্মতরা) যদি নিজের নফসের উপর জুলুম করে আপনার দরবারে আসে, তারপরে আল্লাহর নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করে, আপনি রাসুল তাদের জন্য সুপারিশ তবে নিশ্চয় আল্লাহ তওবা কবুল কারী। [সুরা নিসা, আয়াত শরিফ নং ৬৪]
এখানে শর্ত হল ৩টাঃ
১) নবীর দরবারে যেতে হবে।
২) আল্লাহর নিকট ক্ষমা চাইতে হবে।
৩) রাসুল তাদের জন্য সুপারিশ করতে হবে। সেটাই ত শাফায়াত।

এখন যারা বলে নবীর শাফায়াত মানিনা নিশ্চয় তারা গোমরাহীতে আছে। পাশাপাশি কুরআনে পাকের এই আয়াত শরিফ কে অস্বীকার করার কারণে তারা কাফের হবে। উপরোক্ত আয়াত দ্বারা আরও প্রমানিত হয় আমাদের মহান প্রিয় নবী হায়াতুন্নবী। কেননা কুরআনের আয়াত ত কিয়ামত পর্যন্ত বিদ্যমান থাকবে। যার কোন রদবদল হবে না এবং তা স্থান কাল পাত্রের উর্ধে। এখন অনেকে মদিনাতুল মনওয়ারায় নবীর দরবারে না যাওয়ার জন্য সউদি ওয়াহাবী সরকার কর্তৃক প্রকাশিত বইগুলো হাজিদের নিকট ফ্রি দিয়ে বলে মদিনা মনওরায় যাওয়া হজ্জের অংশ না। সেটা আমরাও বলি হজ্জের অংশ না। কিন্ত হজ্জ আল্লাহর দরবারে কবুল হওয়ার শর্ত হল মদিনা মনওয়ারায় নবীর দরবারে যাওয়া। নতুবা হজ্জ কবুল হবেনা। 

এ প্রসঙ্গে হাদিস শরিফে আছে মহান প্রিয় নবীর বানীঃ যারা মক্কা শরিফ আসল, অথচ আমি নবীর দরবারে আসল না, তারা যেন আমার সাথে বেয়াদবি করল। আর যারা রাসুলের সাথে বেয়াদবি করে, আল্লাহ তায়ালা তাদের জন্য জান্নাত কে হারাম করেছেন। আল্লাহ তায়ালা কুরআনে পাকে বলেনঃ ও মাই ইউ শাক্কিকুর রাসুল, লাকাদ হাররামাল্লাহু আলাইহিল জান্নাত-যারা আমার রাসুল কে কষ্ট দেয়, আমি তাদের জন্য জান্নাত কে হারাম করেছি। সুতরাং তারা ১ বার নয়, ১০০ বার হজ্জ করলেও তাদের হজ্জ আল্লাহ কবুল করবেন না। কেননা যাদের হজ্জ কবুল হবে, তাদের জীবনের গুনাহ মাফ হয়ে যায়। তাই আমার আকুল আপনারা হজ্জে নিজের জীবনের গুনাহ মাফ করতে যেয়ে যদি নবীর দরবারে মদিনাতুল মনোওরায় না যান, তাহলে হজ্জের ফরজ আদায় হবে, কিন্ত হজ্জ কবুল হবেনা। সেটা ১০০% নিশ্চিত। 
তাই মুসলমান সাবধান হন। সউদি ওয়াহাবীদের নিকট নিজের ঈমান বিক্রি না করে মদিনা মনওয়ারায় নবীর দরবারে জিয়ারতে যাবেন সেটাই প্রত্যাশা করি।


শেয়ার করুন