Sunday, November 6, 2016

ব্রিটিশ আমলে নির্মিত ফেনী বিমানবন্দরটি এখন বেদখল



বিশেষ প্রতিনিধি:
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় ফেনীতে বিমানবন্দর নির্মাণ করে ব্রিটিশ সরকার। যুদ্ধকালীন সময়ে বিমান ঘাঁটি ও বিমান রক্ষায় বেশকিছু পদক্ষেপ নিয়ে আলাদা অবয়বে তৈরি করা হয় এই বিমানবন্দরটি। এর চারদিকে হ্যাঙ্গার তৈরি করা হয় যুদ্ধবিমান লুকিয়ে রাখার জন্য। এখন বিমান ওঠানামা না করলেও কালের সাক্ষী হয়ে আছে ফেনী বিমানবন্দর।
১৯৩৮ সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের আগে জাপানের বিরুদ্ধে লড়াই করতে ফেনীতে বিমানবন্দর নির্মাণ করে তৎকালীন ব্রিটিশ সরকার। ফেনী শহরের উত্তরাংশে সুলতানপুর, বারাহিপুর, মজলিশপুর, বিরিঞ্চি, ধর্মপুর ও দেবীপুর এলাকায় প্রায় সাড়ে তিনশ’ একর জমির ওপর এটি গড়ে তোলা হয়।

বিমানবন্দরের চারদিকে ছিলো ২৭টি হ্যাঙ্গার। যেখানে লুকিয়ে রাখা হতো যুদ্ধবিমান।ব্রিটিশ শাসন শেষ হওয়ার পর ফেনী বিমানবন্দরটি আর সচল হয়নি। ত্রিপুরা সীমান্তের খুব কাছে হওয়ার কারণ দেখিয়ে এটি বন্ধ করে দেয় পাকিস্তান সরকার। রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে স্মৃতিচিহ্ন মুছে যাচ্ছে ঐতিহাসিক এই বিমানবন্দরের। বর্তমানে রানওয়ের ৫০ একর জায়গায় গড়ে উঠেছে গার্লস ক্যাডেট কলেজ। বাকী ৩০০ একর জায়গা দেখভাল করছে চট্টগ্রামের সামরিক ভূসম্পত্তি বিভাগ।স্থানীয়রা বলছে, ভূয়া কাগজপত্র তৈরি করে অনেকে গড়ে তুলেছে অবৈধ স্থাপনা। প্রশাসন জানিয়েছে, সরকার পরিকল্পনা নিলে বিমানবন্দর রক্ষায় ব্যবস্থা নেয়া হবে। ইতিহাসের অংশ হয়ে থাকা ফেনী বিমানবন্দর রক্ষায় প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেয়ার দাবি এলাকাবাসীর।

শেয়ার করুন