Tuesday, January 24, 2017

পরশুরামে মুক্তিযোদ্ধোর তালিকা থেকে বাদ দেয়া ৫ জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ

 

পরশুরাম প্রতিনিধি:
মুক্তিযোদ্ধোর তালিকা থেকে বাদ দেয়ার জন্য মুক্তিযোদ্ধোদের কেন্দ্রীয় ও উপজেলা সংগঠক সহ ৫ জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেছেন তাজুল ইসলাম নামের এক মুক্তিযোদ্ধা। তাঁর লিখিত অভিযোগে তিনি দাবি করেন, যারা মুক্তিযোদ্ধা নয়, অথচ মিথ্যা তথ্য দিয়ে মুক্তিযোদ্ধো হিসাবে তালিকায় নাম অন্তভুক্ত করেছেন। ওই পাঁচ জনকে  মুক্তিযোদ্ধোর তালিকা থেকে  তাদের নাম বাদ দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন। লিখিত অভিযোগে আরও জানা যায়, মুক্তিযোদ্ধা কেন্দ্রীয় কমান্ডারর কাউন্সিলের নেতা সফিকুল বাহার মজুমদার টিপু, পরশুরাম উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার কাউন্সিলের ডেপুটি কমান্ডার কামাল উদ্দিন, সলিয়ার মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম সহ ৫ জনকে অমুক্তিযোদ্ধা হিসাবে দাবি করে তাদেও তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাচাই কমিটির সদস্য সচিব মনিরা হকের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অপরদিকে গতকাল সোমবার উপজেলা একাধিক মুক্তিযোদ্ধা অভিযোগ করেন, যাদের বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধা তালিকা থেকে বাদ দেয়ার জোরালো দাবি উঠেছে তারাই পরশুরাম উপজেলা মুক্তিযোদ্ধো যাচাই বাচাই কমিটির সদস্য হিসাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

তাদেরকেও কমিটি থেকে বাদ দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন। পরশুরাম উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার হুমায়ন শাহরিয়ার ৫ জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, অভিযুক্তরা উপজেলা যাচাই বাচাই কমিটির সদস্য সচিব এর কাছে পৃথক পৃথক ভাবে লিখিত জবাব দিয়েছেন। তিনি বলেন, আগামী ২৮ জানুয়ারী শনিবার পরশুরামে মুক্তিযোদ্ধোদের যাচাই বাচাই অনুষ্ঠিত হবে। ওই দিন জেলা মুক্তিযোদ্ধার কমান্ডার, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধার কমান্ডার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সহ সংলিষ্টরা উপস্থিত থাকবেন। মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারর কাউন্সিলের কেন্দ্রীয় নেতা সফিকুল বাহার মজুমদার টিপু জানান, তাজুল ইসলাম মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছেন। 

তাছাড়া তাজুল ইসলাম লিখিত অভিযোগ দেননি বলে, তাদের কাছেও একটি লিখিত অঙ্গিকার নামা দিয়েছেন। তিনি বলেন, তাকে মুক্তিযোদ্ধার তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার বিষয়টি ষড়যন্ত্র বলে তিনি দাবি করেন। পরশুরাম উপজেলা সমাজ সেবা অফিস থেকে জানা গেছে, পরশুরাম উপজেলার মোট ২৭ জন মুক্তিযোদ্ধোর ভাতা দেওয়া হয়। উল্লেখ্য এর আগে মুক্তিযোদ্ধা কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের নেতা সফিকুল বাহার মজুমদার টিপুর বিরুদ্ধে তালিকা থেকে নাম বাদ দেওয়ার অভিযোগে ফেনীর সাবেক সাংসদ জয়নাল হাজারী জামুকাতে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এই বিষয় জেলা প্রশাসক , উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উপজেলা ও জেলা মুক্তিযোদ্ধোর কমান্ডার পৃথক ভাবে তদন্ত প্রতিবেদন দিয়েছেন।

শেয়ার করুন