Tuesday, March 14, 2017

সরকার বিচার বিভাগকে জিম্মি করে রেখেছে : বিচারপতি এসকে সিনহা



বিশেষ প্রতিবেদন:
বর্তমান সরকার বিচার বিভাগকে জিম্মি করে রেখেছেন বলে মন্তব্য করেন প্রধান বিচারপতি। তিনি আজ মঙ্গলবার সকালে মাজদার হোসেন মামলার শুনানির সময় ওই সব কথা বলেন। প্রধান বিচারপতি বলেন, দেশ চলছে না? দেশ কি আটকে আছে? রাষ্ট্রের কাছে ব্যক্তি কিছু নয়, প্রতিষ্ঠানই বড়। বিচার বিভাগকে জিম্মি করে রাখা হয়েছে। এবার আর সময় দেয়া যাবে না। অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমকে লক্ষ্যে করে তিনি বলেন, বিচারকদের শৃঙ্খলাবিধির গেজেট প্রকাশ নিয়ে বারবার সময় নেয়া হচ্ছে। কেন এতো সময়।

তিনি আরও বলেন, বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে কতবার সময় নেয়া হবে? অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ২ সপ্তাহের সময় চাইলে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ সময় দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন। এরপরে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, মন্ত্রণালয় আমাকে জানিয়েছে, রুলস তৈরি করবেন মহামান্য রাষ্ট্রপতি। তিনি বলেন, শিগগিরই বিধিমালা জারি করা হবে, ২ সপ্তাহ চেয়েছি। আশা করি, এ সময়ের মধ্যে সমস্যা সমাধান হবে। পরে বিচারপতি ২ সপ্তাহ সময় মঞ্জুর করেন। এর আগে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি নিন্ম আদালতে বিচারকদের শৃঙ্খলাবিধির গেজেট প্রকাশে সরকারকে ১৪ মার্চ পর্যন্ত সময় দেন আপিল বিভাগ। কিন্তু সরকার গেজেট প্রকাশ না করে আদালতে সময় আবেদন করেন।

প্রধান বিচারপতি বলেন, এর আগেও গেজেট প্রকাশে কয়েক দফা সময় নেয় সরকার। নির্বাহী বিভাগ থেকে বিচার বিভাগ পৃথকীকরণে মাজদার হোসেন মামলায় ১৯৯৯ সালের ২ ডিসেম্বর ১২ দফা নির্দেশনা দিয়ে রায় দেন সর্বোচ্চ আদালত। নিন্ম আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলাবিধিমালা প্রণয়ন না করায় আইন মন্ত্রণালয়ের ২ সচিবকে গেলো বছরের ১২ ডিসেম্বর তলব করেন আপিল বিভাগ। গেলো বছরের ৭ নভেম্বর বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলাবিধিমালা ২৪ নভেম্বরের মধ্যে গেজেট আকারে প্রকাশ করতে সরকারকে নির্দেশ দিয়েছিলেন আপিল বিভাগ। ১৯৯৯ সালের ২ ডিসেম্বর মাসদার হোসেন মামলায় ১২ দফা নির্দেশনা দিয়ে রায় দেয়া হয়। ওই রায়ে নিন্ম আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলাসংক্রান্ত বিধিমালা প্রণয়নের নির্দেশনা ছিল।
সূত্র: আরটিভি



শেয়ার করুন