Monday, May 22, 2017

ফেনী সদর হাসপাতালের ডেলিভারী বিভাগের বেহাল দশা ও'টিতে যন্ত্রপাতির অভাবে চিকিৎসা ব্যবস্থা ব্যহত,দ্বিতীয় পর্ব.....


মোঃ ইউনুছ ভূঞাঁ সুজন, (ফেনী প্রতিনিধি):
ফেনী সদর হাসপাতালটি ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট্য হলে ও প্রয়োজনীয় যন্ত্র সামগ্রী ও সঠিক রক্ষনা-ব্যক্ষণের সংক্রান্ত জটিলতার কারণে ডেলিভারী বিভাগের বেহাল দশা ও'টিতে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতির অভাবে চিকিৎসা ব্যবস্থা ব্যাহত হচ্ছে।

সরজমিনে গিয়ে দেখা য়ায়, ফেনী সদর হাসপাতালের পুরতন বিল্ডিং'র নিচ ত'লা ও'টি - ডেলিভারী বিভাগটি গুরে দেখা যায়। অপারেশন করার জন্য নিয়ম অনুযায়ী দু'টি লাইট একটি ও'টি কক্ষে থাকার কথা থাকলেও সেই ক্ষেত্রে ১টি লাইট রয়েছে তাও অনেক পুরাতন অনেক সময় অপারেশন করার সময় নানান  সমস্যার সমুক্ষীন হতে হয়।

ফেনী সদর হাসপাতালের ডেলিভারী বিভাগের সিনিয়র র্নাস মর্জিনা আক্তার জানান, দু'টি ওয়ার্ডের সমন্বয়ে এ বিভাগটি গঠিত। একটি প্রসূতি পূর্ববর্তী যাতে  ৬টি সিট রয়েছে,অপরটি প্রসূতি পরবর্তী যাতে ২২টি  সিট রয়েছে।

 প্রতিদিন গড়ে ৩০-৩৫ প্রসূতি রোগী আসে। কখনো দেখা য়ায় যে সিটের সমস্যার পরি-প্রেক্ষিতে অতিরিক্ত আরো ৬-৮সিট আমরা ব্যবহার করে থাকি। তার পর ও অনেকে  সিটের অভাবে নিচে থাকতে হয়।


  ফেনী সদর হাসপাতালের ডেলিভারী বিভাগের সহকারী  সিনিয়র ডাঃ রোকসানা বেগম স্বপনা জানান, মাত্র ৬সিটের পরিবর্তে প্রতিদিন গড়ে ৩০-৩৫ রোগী আসে য়ার ফলে একদিকে যেমন রোগীরা সিটের অভাবে ভোগান্তীর শিকার অন্য দিকে ডাক্তারের অভাবে আমাদের কে অতিরিক্ত দায়িত্ব নিতে হয়।

অনেক সময় দেখা গেল শুক্রবারে ও এসে রোগী দেখতে হয়। হাসপাতালের সিট সংকট ও অন্যান্য বিষয়ে তার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ও'টি বিভাগের বিভিন্ন সমস্যা রয়েছে তার মধ্যে অপারেশনের সময় বিদ্যুৎ'র সমস্যা একটি বড় সমস্যা ঐ সময় অপারেশন কৃত রোগীর মারাত্বক সমস্যা হতে পারে বিদ্যুতের অনুপস্থিতির কারনে, আমাদের কোন জেনেটর নেই যে, বিদ্যুতের বিকল্প হিসাবে ব্যবহার করবো যখন বিদ্যুত থাকবেনা।


তিনি আরো বলেন,গত এপ্রিল মাসের হিসাব অনুযায়ী ৭০০ জন প্রসূতি  রোগী আমাদের বিভাগে বিভিন্ন ভাবে সেবা নিতে আসে এর মধ্যে ৩৭০ জন ভর্তি  হয়, ২০২টি চিজার করা হয় ও বাকীদের নরমাল ডেলিভারী হয়।  আমরা গত মাসের মাসিক  কার্যবিবরনীতেও আমরা আমাদের নানান সমস্যার কথা বিশেষ করে ডেলিভারী ওয়ার্ড বর্ধীতিকরন, নতুন টয়লেট স্থাপন, ও'টিতে এসি লাগানো, ও বিদ্যুতের অবর্তমানে জেনেটরের ব্যবস্থা চালু করা।

ফেনী সদর হাসপাতালের আর এম ও'র অসীম শাহের কাছে ডেলিভারী বিভাগের নানান সমস্যার কথা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ডেলিভারী বিভাগটি প্রয়োজনের তুলনায়, অনেক ছোট এর নানাবিধ সমস্যার কথা স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ে জানানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

ও'টিতে ২টি লাইট থাকার কথা রহিলে ও ১টি রয়েছে তাও প্রায় অকেজো নানান সমস্যা দেখা দেয় য়ে কোন সময় বড় ধরনের বিপদ হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে বলে তিনি জানান। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ফেনী সিভিল সার্জনের অনুমতি ক্রমে  দাগনভূঞা উপজেলা হাসপাতাল থেকে একটি লাইট আনা হবে বলে তিনি জানান। অপর দিকে ও'টিতে এসির ও অপারেশনের সময় অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ন জেনেটর  ব্যবস্থার কথা জানতে চাইলে তিনি কোন মন্তব্য না করে ফোন রেখে দেন।

এদিকে  হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত ত্বত্তাবধায়ক হিসাবে দায়িত্বে থাকা ফেনী সিভিল সার্জন শাহারিয়ার কবিরকে হাসপাতালের নানান সমস্যা সংক্তান্ত বিয়ষ নিয়ে তার সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে ও তাকে ফোনে পাওয়া যায়নি।

শেয়ার করুন