Wednesday, June 14, 2017

ফেনী জেলার “জেলা-ব্র্যান্ডিং” বিষয়ক কর্মশালা


বিশেষ প্রতিনিধি:
বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নের মাধ্যমে সদর্পে সামনে এগিয়ে যাচ্ছে। উন্নয়নের পথ পরিক্রমায় বর্তমান সরকার ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে  একটি মধ্যম আয়ের দেশে এবং ২০৪১ সালের মধ্যে একটি সুখি ও সমৃদ্ধ দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে বদ্ধ পরিকর। এই লক্ষ্যসমূহ অর্জনে প্রয়োজন সমন্বিত উদ্যোগ ও প্রচেষ্টা এবং দেশের প্রতিটি অঞ্চলের অর্থনৈতিক সম্ভাবনার যথাযথ বিকাশ। জেলা ব্র্যান্ডিং এমনই একটি আন্দোলন যেখানে একটি জেলার ইতিহাস-ঐহিত্যকে বিবেচনায় রেখে জেলার সর্বস্তরের মানুষকে সম্পৃক্ত করে তার স্বাতন্ত্র্য ও সম্ভাবনাকে বিকশিত করা যায়।

জেলা-ব্র্যান্ডিংয়ের বহুবিধ উদ্দেশ্য রয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম হলো:- জেলার অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে গতিসঞ্চার, পর্যটন শিল্পের বিকাশ, জেলার ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির লালন ও বিকাশ, জেলার ভৌগোলিক নির্দেশক পণ্য শনাক্তকরণ এবং তার স্বত্ব সংরক্ষণ ও নিবন্ধনে সহায়তা প্রদান,  এক জেলা এক পণ্য কর্মসূচির বাস্তবায়নে সহায়তা, স্থানীয় উদ্যোক্তা তৈরি, অবকাঠামোগত উন্নয়ন, জেলার সর্বস্তরের অধিবাসীকে উন্নয়ন অভিযাত্রায় শামিল করা, সামাজিক সংহতি সুদৃঢ়করণ, টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিতকরণে সহায়তা প্রদান,  সমৃদ্ধ বাংলাদেশকে বিশ্ব-দরবারে উপস্থাপন এবং সামগ্রিকভাবে দেশের উন্নয়ন।
বাংলাদেশের প্রতিটি জেলার মত ফেনী জেলারও ইতিহাস-ঐতিহ্যকে বিবেচনায় রেখে জেলার সরকারি কর্মচারী, যুবসম্প্রদায় এবং সর্বস্তরের মানুষকে সম্পৃক্ত করে এ জেলাকে  দেশে-বিদেশে তুলে ধরাসহ ‘রূপকল্প-২০২১’ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ফেনী জেলার ব্র্যান্ডিং এর কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। ফেনী জেলার চলমান উদ্যোগ ও সম্ভাবনসমূহকে বিকশিত করার মাধ্যমে এ জেলার সার্বিক উন্নয়ন ঘটানোই জেলা-ব্র্যান্ডিং এর মূল উদ্দেশ্য।

ফেনী জেলার জেলা-ব্র্যান্ডিং বিষয়ে  সার্বিক কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন এবং বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বুধবার সকাল ১০.০০ টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা অনুযায়ী জেলার উর্দ্ধতন সরকারি কর্মকর্তা, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন