Saturday, July 1, 2017

ফেনী সোনাগাজীতে বিএনপি নেতা বাহারের স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত


সোনাগাজী প্রতিনিধি:
ফেনী জেলা বিএনপির সদস্য ও সোনাগাজী পৌর বিএনপির দফতর সম্পাদক মরহুম মোরশেদ আলম বাহারের স্মরণ সভায় জেলা ও উপজেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত না থাকায় স্মরণ সভায় তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা প্রকাশ করেছেন নেতাকর্মীরা। এ নিয়ে দায়িত্বশীল নেতাদের প্রতি পৌর বিএনপি ও তৃণমূল নেতাদের মাঝে চরম ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজমান। একজন জেলা বিএনপি নেতার স্মরণ সভায়, কেন জেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাড. আবু তাহের, সাধারন সম্পাদক জিয়া উদ্দিন মিস্টার, সোনাগাজী উপজেলা বিএনপির সভাপতি গিয়াস উদ্দিন, সাধারন সম্পাদক জামাল উদ্দিন সেন্টু দাওয়াত পেয়েও উক্ত সভায় উপস্থিত হননি।

প্রকাশ্যে তার কারণ জানতে চান তৃণমূলের একাধিক নেতাকর্মী? শুক্রবার বিকালে সোনাগাজী হাসপাতাল মসজিদ প্রাঙ্গনে মরহুম বিএনপি নেতা মোরশেদ আলম বাহারের স্মরণে সোনাগাজী পৌর বিএনপি আলোচনা সভা, মিলাদ ও দোয়া মাহ্ফিলের আয়োজন করেন।

পৌর বিএনপির সভাপতি আবুল মোবারক ভিপি দুলালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, ফেনী-৩ আসনে বিএনপি থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী ও যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নেতা আলহাজ্ব সোলাইমান ভূঞা। বিশেষ অতিথি ছিলেন, সোনাগাজী পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি আলা উদ্দিন গঠন, উপজেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও চরদরবেশ ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ,  উপজেলা যুবদলের সাধারন সম্পাদক খুরশিদ আলম ভূঞা, যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক ইকবাল হোসেন, উপজেলা বিএনপির সাবেক প্রচার সম্পাদক নুরুল আনোয়ার শেখ, পৌর যুবদলের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক খুরশিদ আলম, ফেনী জেলা জিসাসের সভাপতি আলমগীর হোসেন, উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক হাসান মাহমুদ ও পৌর কৃষকদলের সভাপতি মো. মাইন উদ্দিন।

 আরো উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা শ্রমিক দলের যুগ্ম আহবায়ক হুদা মিয়া, পৌর বিএনপি নেতা মো. মোস্তফা, আবু সুফিয়ান, আলা উদ্দিন, নুর আলম জিকু  মামুন, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা রাশেদ মোজাম্মেল ও বাস্তহারা দলের নেতা আবদুল কাইয়ুম প্রমূখ। পৌর বিএনপির সভাপতি আবুল মোবারক ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, উপজেলার প্রত্যন্তঞ্চলের নির্যাতিত দলীয় নেতাকর্মীরা নির্যাতনের শিকার হতেন তখন অকাতরে সহযোগিতা করতেন মরহুম বিএনপি নেতা বাহার। বিগত ১০/১২ বছর যাবৎ তার মালিকীয় লিপু ফার্মেসী দলীয় কার্যালয়ের মত ব্যবহার করা হত। সকল কর্মসূচী তার দোকান সংলগ্ন স্থানে পালন করা হত। জেলা এবং উপজেলার এমন কোন নেতা নেই যে বা যারা বাহারের দোকানে বসেন নাই বা দলীয় আলোচনা করেন নাই। সর্বোপুরি বাহার দলীয় কোন্দল নিরসনে সবসময় রেফারির ভূমিকা পালন করতেন আর জাতীয়তাবাদী শক্তির নেতাকর্মীদের মাঝে সেতুবন্ধন তৈরী করে দিতেন।

গত ১৪ জুন সকাল ৯টায় হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে বাহার মারা যান। ওই দিন বিকালে ছিল ফেনী জেলা বিএনপির আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল। কিন্ত সে আলোচনা সভায়ও বাহারের জন্য কোন শোক প্রস্তাব আনা হয় নাই। আজকে স্মরণ সভায়ও দাওয়াত দেয়ার পরও জেলা ও উপজেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ তার স্মরণ সভায় উপস্থিত হননি। আলোচনা সভা শেষে মোরশেদ আলম বাহারের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মিলাদ ও দোয়া পরিচালনা করেন, বক্স আলী ভূঞা জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাও. মো. নুর উল্যাহ।

শেয়ার করুন