Wednesday, December 11, 2019

জামায়াত থেকে ফেনীর আলোচিত সাবেক ডিসি সোলায়েমানের পদত্যাগ

ফেনীর সাবেক ডিসি এ এফ এম সোলায়েমান চৌধুরী জামায়াত থেকে পদত্যাগ করেছেন। তিনি ২০০১ সালে ত্বত্তাবধায়ক সরকারের সময় আগস্ট মাসের শুরুতেই ফেনীর জেলা প্রশাসক হিসেবে যোগদান করেন। একই সনের ১৭ আগস্ট তিনি ফেনীর তৎকালীন গডফাদার খ্যাত জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জয়নাল হাজারীর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে দেশ বিদেশে ব্যাপক আলোচিত হন।

২০০১ সালে হাজারীর বাস ভবন থেকে বিপুল পরিমাণ ‘অস্ত্র গোলাবারূদ উদ্ধার করে’ ব্যাপক প্রচার চালানো হয়। এসময় জয়নাল হাজারী পালিয়ে ভারতে আশ্রয় নেন। পরবর্তীতে জয়নাল হাজারী ডিসি সোলায়েমান চৌধুরীকে জামায়াত নেতা হিসেবে আখ্যায়িত করলেও প্রতিষ্ঠা করতে পারেননি। ডিসি হিসেবে সোলায়েমান চৌধুরীর প্রায় দুই বছরের কর্মকালীন সময়টি ফেনীর জনপদে সোলায়েমানী শাসন ও তিনি সোলায়েমান বাদশা নামে পরিচিতি পান। ২০০২ সালে বিএনপির চেয়ার পার্সন বেগম খালেদা জিয়ার অনুজ সাঈদ এস্কান্দরের সাথে বিরোধে জড়িয়ে বদলী হন।

পরবর্তীতে সোলায়মান চৌধুরী ঢাকা ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সচিব, পাটকল সংস্থার চেয়ারম্যান, চট্টগ্রাম ওয়াসা চেয়ারম্যান, জনতা ব্যাংকের চেয়ারম্যান, পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের চেয়ারম্যান, রাষ্ট্রপতির সচিবসহ গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন। সর্বশেষ রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান পদ থেকে তিনি চাকুরি থেকে অবসরে যান। চাকুরী শেষে তিনি বিএনপির চেয়ার পার্সন বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক উপদেষ্টা হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। এক সময় জামায়াত রাজনীতির সাথে জড়িয়ে পড়েন তিনি। সাবেক এই আমলা মঙ্গলবার ১০ ডিসেম্বর জামায়াত রাজনীতি থেকেও পদত্যাগ করেন। এদিন দুপুরে দলের আমির ডা. শফিকুর রহমানের কাছে পদত্যাগপত্র পাঠান তিনি।


দলের আমিরকে লেখা পদত্যাগপত্রে সোলায়মান চৌধুরী বলেন, ‘আশা করি ভালো এবং সুস্থতার সাথে আপনার উপর অর্পিত দায়িত্ব আমানতদারিতার সাথে পালন করছেন। আমি এ.এফ.এম সোলায়মান চৌধুরী অদ্য ১০ ডিসেম্বর-২০১৯, মঙ্গলবার বেলা ১টা ৫০ মিনিটে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সদস্য পদে ইস্তফা প্রদান করলাম এবং সংগঠনের সকল দায়িত্ব ও পদ থেকে পদত্যাগ করলাম।’

শেয়ার করুন